একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের দায়ে চারজনের মৃত্যুদন্ড

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে চারজনকে ফাঁসি ও আরেকজনকে আমৃত্যু কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

দণ্ডপ্রাপ্ত সবাই কিশোরগঞ্জ জেলার এবং ১৯৭১ সালে তাঁরা পাকিস্তানী বাহিনীর সহযোগী রাজাকার বাহিনীর সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন বলে আদালত বলা হয়েছে।

প্রসিকিউটররা বলছেন, হত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুটপাট ইত্যাদি যুদ্ধকালীন অপরাধের অভিযোগে কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জ উপজেলার পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

ঐ মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল অভিযুক্তদের মধ্যে চারজনকে ফাঁসির আদেশ দেয়। আর একজনকে দেয়া হয় আমৃত্যু কারাবাসের দণ্ড।

তবে দণ্ডপ্রাপ্ত চারজনই পলাতক রয়েছেন এবং আদালত তাদের খুঁজে বের করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছে।

প্রসিকিউটর তুরিন আফরোজ বিবিসিকে বলেছেন, এই রায়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকে দুটো রাষ্ট্রের মধ্যে যুদ্ধ হিসেবে প্রথমবারের মত স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে।

কিশোরগঞ্জের সাজাপ্রাপ্ত পাঁচজনের সবাই স্বল্প পরিচিত, তবে ট্রাইব্যুনাল এর আগে সুপরিচিত বেশ কিছু যুদ্ধাপরাধীকে সাজা দিয়েছে।