মোসলেম প্রধান ও সৈয়দ হোসেইনের বিচার শুরু

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় কিশোরগঞ্জের মো. মোসলেম প্রধান (৬৭) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সৈয়দ মো. হোসেইনের (৬৪) বিচার শুরু করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। তাঁদের বিরুদ্ধে হত্যা, অগ্নিসংযোগ, লুণ্ঠনসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ছয়টি অভিযোগ আনা হয়েছে।

বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল গতকাল সোমবার এ দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্য শুরুর নির্দেশ দেন। এই ট্রাইব্যুনালের অপর দুই সদস্য হলেন বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলাম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ারদী।

এ মামলার দুই আসামির মধ্যে মোসলেম প্রধানকে গতকাল ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। অপর আসামি সৈয়দ হোসেইন পলাতক। তিনি মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির আদেশপ্রাপ্ত পলাতক হাসান আলীর ছোট ভাই।

আসামির কাঠগড়ায় মোসলেমের উপস্থিতিতে অভিযোগ গঠনের আদেশ পড়ে শোনান ট্রাইব্যুনাল। পরে ট্রাইব্যুনাল তাঁর কাছে জানতে চান, তিনি দোষী না নির্দোষ। মোসলেম নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। এরপর ট্রাইব্যুনাল রাষ্ট্রপক্ষের সূচনা বক্তব্য ও সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য আগামী ৫ জুন দিন নির্ধারণ করেন। ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন কৌঁসুলি তাপস কান্তি বল। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী আবদুস সাত্তার পালোয়ান।

গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর এ দুই আসামির বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ তদন্ত শেষে প্রতিবেদন দেয় তদন্ত সংস্থা। এতে দুই আসামির বিরুদ্ধে ছয় ঘটনায় ৬২ জনকে হত্যা, ১১ জনকে অপহরণ ও আটকে রাখা, ২৫০টি বাড়িঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের অভিযোগ আনা হয়।

গত বছরের ৭ জুলাই ট্রাইব্যুনাল গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করলে কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলার কামারহাটি গ্রাম থেকে মোসলেমকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সৈয়দ হোসেইনকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।