যারা বিশ্বাস করেন বাংলাদেশে কোন জঙ্গি গোষ্ঠী নেই,আপনারা এখনও মায়ের কোলে

০৭ মে, ২০১৬ দৈনিক যুগান্তর এ, একটা রিপোর্ট আসছিলো, হেড লাইন টা ছিল ঠিক এমন, ‘রমজানেই বাংলাদেশে আইএসের নেতা নিয়োগ’
খরটায় বলা হয়েছিল,
”শিগগিরই মুসলিমপ্রধান অঞ্চলগুলোতে তাদের প্রতিনিধি বা নেতা নিযুক্ত করতে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে তারা গুরুত্ব দিচ্ছে উত্তর আফ্রিকা, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং বাংলাদেশকে। এজন্য তারা আসন্ন পবিত্র রমজান মাসকে বেছে নিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক রিসার্স গ্রুপ ইন্সটিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব ওয়ারের (আইএসডব্লিউ) এপ্রিল মাসের প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

আইএসের কার্যক্রমের ওপর তৈরি ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মুসলিমপ্রধান ওই অঞ্চলগুলো হল- আলজেরিয়া, নাইজেরিয়া, লিবিয়া, মিসর, সৌদি আরব, ইয়েমেন, আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও বাংলাদেশ।

পবিত্র রমজান মাসের আগে ও মধ্যে আইএস তাদের কার্যক্রমে নতুন গতি আনতে পারে। তাদের লক্ষ্য গুরুত্বপূর্ণ ওই দেশগুলোতে নতুন করে সংগঠিত হওয়া ও কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ করা। রমজান মাসে এসব অঞ্চলে আইএস আঞ্চলিক নেতৃত্ব গঠন করতে পারে।”

খবরটা যেমন ছিল ঠিক ওভাবেই কপি করে দিলাম। খবরটা আমি কি কারনে সেভ করে রেখেছিলাম জানি না।কেন জানি মনে দাগ কেটেছিল। খবরটা এভাবে সত্যি হয়ে যাবে দুঃস্বপ্নেও ভাবি নি। হিসাব করে দেখুন, ঠিক রমজানের শেষে ঈদ এর আগে দিয়েই এরকম একটা জঙ্গি হামলা হোলো বাংলাদেশে। ভেবেছিলেন এরকম হবে?এই প্রথম এরকম জঙ্গি হামলার শিকার হোল বাংলাদেশের ক্যাপিটাল প্রিয় ঢাকা। দেশি বিদেশী নাগরিকদের জিম্মি করে গুলশানের ৭৯ রোডের হলি আর্টিজান বেকারিতে আটকে রেখেছে।

প্রচণ্ড মানসিক যন্ত্রণা থেকে হয়ত কথা গুলো বেরিয়ে আসছে, কিন্তু ব্যাপারটা কি ভাববার বিষয় নয়? ভাবুন। এখন যারা বিশ্বাস করেন বাংলাদেশে কোন জঙ্গি/ জঙ্গি গোষ্ঠী নেই,আপনারা এখনও মায়ের কোলে। ৮/১০ জন বন্দুকধারী জঙ্গি কে যদি আপনাদের সাধারণ মানুষ মনে হয়, আপনারা তাহলে একেকটা অপদার্থ। ধর্মকে পুঁজি করে ধর্ম নিয়ে ব্যবসা করে যারা জঙ্গিবাদের জন্ম দেয় তারা মানুষের জাতের মধ্যে পরে না। আর এদের কে আপনারা যারা সাপোর্ট করেন আপনারাও মানুষের কাতারে পরেন না। আপনারা অমানুষ।

সুত্র http://www.jugantor.com/online/national/2016/05/07/12100/